প্রচ্ছদ ভোলা

করোনা প্রতিরোধে পটুয়াখালীর সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

আব্দুল আলিম খান, পটুয়াখালী

করোনাভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে পটুয়াখালীর সাথে সারা দেশের আজ থেকে নৌ ও সড়ক পথে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আজ এ ঘোষণা দেয়া হয়। ফলে আজ থেকে পটুয়াখালী থেকে দুরপাল্লা ও অভ্যান্তরীন সকল রুটের লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘেষণা করা হয়েছে। এ ছাড়া সড়ক পথেও দুরপাল্লা ও অভ্যান্তরীন সব রুটের বাস, মিনি বাস, ইজি বাইকসহ অন্যান্য যানবাহ চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

 তবে জরুরী পন্য পরিবহনে নিয়োজিত বাহন চলাচল করতে পারবে। এ দিকে জনসমাগম হতে পারে এমন সব স্থান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পটুয়াখালী শহরের বিভিন্ন স্থানে চায়ের দোকান গুলি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এমন বাস্তবতায় করোনা প্রতিরোধে সরকারে নির্দেশনা অনুযায়ি নানা পদক্ষেপের বস্তায়ন করতে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসকের দরবার হলে বিকাল তিনটায় সেনাবাহীনির সাথে জরুরী বৈঠকে বসছে জেলা প্রশাসন।

 এ দিকে সম্ভাব্য করোনা সংক্রমন ঠেকাতে জেলা সদরে ৫০ বেডের কোয়ারাইন্টাইন ও আইশ্লোসন ইউনিট খোলা হয়েছে। যেখানে ৬ জন ডাক্তার ও ১০ জন সেবিকা সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবেন। যদিও পটুয়াখালীতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত কোন রোগী সনাক্ত হয় নি।

 অপর দিকে করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে চিকিৎসক ও সংশ্লিষ্টদের জন্য সরকারী ভাবে ‘‘পার্সোনাল প্রোটেকশন ইকুইপমেন্টস (পিপিই)’’ সরবরাহ করা হয়েছে মাত্র ২৫০ সেট। যার মধ্যে জেলার ৭ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র, বক্ষব্যধি হাসপাতাল, মা ও শিশু কেন্দ্রের জন্য ১০০ সেট। এ ছাড়া জেলা শহরে ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপতালের জন্য ১৫০ সেট। যা প্রয়োজনে তুলনায় অপ্রতুল। কিন্তু রোগী সনাক্তে দেয়া হয় নি কোন কিডস। যে কারনে এখানকার চিকিৎসক ও সেবিকাদের কাজ করতে হচ্ছে যুকির মধ্যে। পটুয়াখালী জেলার ৭ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, জেলা শহরে ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপতাল, মা ও শিশু কেন্দ্র ও একটি বক্ষব্যধি হাসপাতাল রয়েছে।

 এ দিকে চলতি মাসের শুরু থেকে ১৭ মার্চ পর্যন্ত ১১’শ জন বিদেশ ভ্রমনকারী কিংবা প্রবাসীর মধ্যে ২৪ মার্চ পর্যন্ত মাত্র ৬০৭ জনকে হোম কোয়ারাইন্টাইনে আনা গেছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় হোম কোয়ারাইন্টাইনে আনা হয়েছে ২০ জনকে। এর মধ্যে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ১৮০ জনকে। এ সময় পর্যন্ত ০২ জনের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *